1. admin@dailynetrokonaprotidin.xyz : admin : তানজিলা আক্তার রুবি
  2. eleas015@gmail.com : ILIAS HOSEN : ILIAS HOSEN
নেত্রকোনা জেলা শহরের প্রধান সড়কে ভ্রাম্যমাণ বাজার ভোগান্তি পথচারীদের। - দৈনিক নেত্রকোণা প্রতিদিন
শনিবার, ০১ এপ্রিল ২০২৩, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
ভোটার তালিকায় ভুয়া মৃক্তিযোদ্ধার নাম, প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধার নাম নেই! মদনে কাঁচা ধান কাটা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৫ জন। কলমাকান্দায় নারী উন্নয়ন ফোরামের হাঁস বিতরণ। নেত্রকোনায় মোহনীয় গন্ধে মাতোয়ারা বর্ষার যৌবনে রূপের গৌরবে মেতে উঠছে কদম ফুল। পুলিশের বাঁধার মুখে ইফতার মাহফিল করলেন রেটারিয়ান এম. নাজমুল হাসান। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে বাজার মনিটরিং করেন পূর্বধলার থানার ইনচার্জ। দূর্নীতির তথ্য ধামাচাপা দেওয়ার অপচেষ্টা ও অপপ্রচারের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন। কেন্দুয়ায় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বাজার মনিটরিং। “প্রিয় স্বাধীনতা তুমি” সোহেল খান দূর্জয়। নেত্রকোনা কেন্দুয়া সড়ক তো নয়, যেন মৃত্যুর ফাদ, লাল ধূলোর খনি,দূর্ভোগে জনগণ।

নেত্রকোনা জেলা শহরের প্রধান সড়কে ভ্রাম্যমাণ বাজার ভোগান্তি পথচারীদের।

Spread the love

সোহেল খান দূর্জয়, নেত্রকোনাঃ

নেত্রকোনা জেলা শহরের মাছুয়া বাজার এলাকায় প্রধান সড়কে অবৈধ বাজার গড়ে উঠেছে। এতে ভয়াবহ যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। চলাচলে দুর্ভোগে পড়ছেন পথচারীরা। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নীরব ভূমিকা পালন করছে বলেও অভিযোগ করেন কয়েকজন পৌরবাসিন্দা। সবার একেই কথা নেত্রকোনা শহীদ মিনারের সামনে ও নেত্রকোনা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান সড়কের উপর প্রতিদিন এসব ভ্রাম্মমান বাজার বসে।

প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে রাত ১১ পর্যন্ত বসে এ বাজার। এ বাজারে ভ্যানে বসে সবজি, মাছ ও মুদি দোকান। এছাড়া ঝুপড়িঘর করে চায়ের দোকান, ফলের দোকান ফুচকা-চটপটির দোকান গড়ে তোলা হয়েছে। এ কারণে নেত্রকোনা জেলা শহরের প্রধান রাস্তায় যানজট লেগেই থাকে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে, নেত্রকোনা পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো.আব্দুল হেলিম বলেন, বাজারটির সঙ্গে দলীয় কোনো সম্পর্ক নেই। এ বিষয়ে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি খন্দকার শাকের আহমেদ বলেন, রাস্তায় চলাচলে সমস্যা হলে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নেব। আমরা প্রতিদিনেই এদেরকে উচ্ছেদ করি তার পরেও ওঁরা পেটের দায়ে এই রাস্তার উপরে বাজার নিয়ে বসে।

সরেজমিন দেখা যায়, প্রতিদিন সকাল থেকে ভ্যানে বিভিন্ন মালামাল নিয়ে দোকান বসতে থাকে। বিকাল থেকে সন্ধ্যার মধ্যে জমজমাট হয়ে ওঠে বাজারটি। এ সময় যানজটও বাড়তে থাকে। আরও দেখা যায়, রাস্তাটির মোড়ের ডান দিক দিয়ে রাজুর বাজার ও বামে অজহর রোড ও আখড়ার দিকে যাওয়াতে সারাক্ষণই ব্যস্ত থাকে এ রাস্তাটি।

কাছাকাছি কোনো বাজার থাকার পরও ক্রেতারাও এ বাজারে আসে। সকাল ১০টায় পথচারী কামাল যাচ্ছিলেন এ পথ দিয়ে। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ভেতরের দিকে যাওয়ার জন্য একমাত্র রাস্তা এটি। রাস্তার পাশে বাজার বসাতে রাস্তাটি সরু হওয়াতে দুই লাইনে গাড়ি চলতে পারে না। তার মধ্যে রাস্তার পাশে এমন বাজার বসায় দুর্ভোগ বেড়েই চলে। আশপাশে বাজার থাকার পরও আমিও মাঝে মাঝে এখানে বাজার করি। তাই বলে এই নয় যে, আমি রাস্তার উপর বাজার বসাকে সমর্থন করি।

অপর পথচারী সুমি বলেন, সারাদিন অফিস করে বাসায় ফেরার পথে শহরের রাস্তা গুলোর যানজট মাড়িয়ে এসে রাস্তার প্রধান সড়কে যদি যানজট পাই, ব্যাপারটা সত্যি ভীষণ যন্ত্রণাদায়ক। এটার প্রতিকার হওয়া জরুরি।

এ বাজারের বিক্রেতা আবদুস সালাম বলেন, আমরা গরিব মানুষ। আমাদের এত টাকা নেই যে, বাজারে একটা দোকান নিয়ে বসব। তাই পেটের দায়ে রাস্তার ওপর বসি। পরিবারের ভরণপোষণের ভার আমার একার। তাই অভাবের তাড়নায় বসতে হয়। আরেকজন বিক্রেতা শামীম বলেন, এখানে বেচাকেনা খুব ভালো। প্রায় সারাদিনই ক্রেতা থাকে।

কয়েকদিন পর পর আমাদের তুলে দেয়া হয়। তারপরও বসি, কারণ এখানে বসলে কিছু টাকা উপার্জন করা যায়। যানজট বাজারের জন্যই হয়। কিন্তু পেটের জন্য এখানে দোকান নিয়ে বসতে হয় আমাদের।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category

Archive Calendar

© All rights reserved © 2019 Breaking News
Theme Customized By BreakingNews